ফরমুলা ই-রেস চ্যাম্পিয়নশীপে রোবট!

robotরোবটের ড্রাইভিংয়ে ফরমুলা ই রেস চ্যাম্পিয়নশীপ করার ঘোষণা দিয়েছে ফরমুলা ই রেসের আয়োজকরা। সাধারণভাবে ভিডিও গেইমার কোন ব্যক্তির পরিচালনায় ই-রেস চ্যাম্পিয়নশীপ আয়োজন করে আসছে ফরমুলা ই। তবে আগামী বছর থেকে ড্রাইভার ছাড়া রেস আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে তারা। যেখানে বিশেষজ্ঞ ও শখ করে ভিভিও গেইমস খেলে থাকেন এমন সবাই অংশ গ্রহণ করতে পারবেন। ফরমুলা ই এর চিফ এক্সিকিউটিভ অ্যালিজান্ড্রো আগাগ বলেছেন রোবট রেস বিশ্বের সব বৈজ্ঞানিক উদ্ভাবনী ও টেকনোলজির আবিস্কারক ও প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য একটি উন্মুক্ত প্রতিযোগিতা।

এরই মধ্যে অনেক টেকনোলজি প্রতিষ্ঠান এ ধরণের কার তৈরি করছেন। যা রোবটের মাধ্যমে পরিচালিত হবে। এমন একটি প্রতিষ্ঠান কিনটিক। প্রতিষ্ঠানটি রোবট রেসে ফরমুলা ই এর সহযোগী।

কিনটিক এর প্রতিষ্ঠাতা ডেনিস এসভার্ডলভ বলেছেন তিনি বিশ্বাস করেন ভবিষ্যতে বিশ্বের সব গাড়ি রোবটের মাধ্যমে চলবে। আর এসব গাড়িতে জ্বালানী হিসেবে বিদ্যুৎ ব্যবহৃত হবে যা পরিবেশের উন্নয়ন ঘটাতে সহায়তা করবে।

ডেনিস বলেন রোবট রেসের মাধ্যমে টেকনোলজি খাতে মানুষের যে উদ্ভাবনীর বিপ্লব ঘটেছে তা উদযাপন করা হবে।

গত দুই সিজন ধরে ফরমুলা ই রেস অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এবারের লন্ডন ফরমুলা ই রেস ২০১৬ সালের জুনে বেটারসিয়া পার্কে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তবে স্থানীয়রা পার্কে রেসটি অনুষ্ঠানের বিরোধীতা করছে।

ফসল নজরদারিতে ড্রোন

Dronমাঠের শষ্য দেখভালের জন্য ড্রোন তৈরি করছে চীনের বিখ্যাত ড্রোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ডিজেআই। শষ্য ক্ষেতে নজরদারি চালাতে তৈরি বিশেষ ধরণের এ ড্রোনের নাম দেওয়া হয়েছে আগরাস এমজি-১। বিশ্বের অনেক দেশে শষ্য ও খামারের গবাদি পশু দেখভালের জন্য ড্রোন ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

নিজেদের ওয়েবসাইটে প্রতিষ্ঠানটি কৃষিখাতে ব্যবহারের জন্য বিশেষ ধরণের ড্রোন বাজারজাত করার কথা জানিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, সাধারণভাবে নজরদারি চালানো ড্রোনের চেয়ে ৪০ গুণ বেশি কার্যকরী ও দক্ষ হবে এটি।

ড্রোনটির আটটি রাডার রয়েছে এবং এটি প্রতি ফ্লাইটে ১০ কেজি পর্যন্ত ফ্লুইড বহন করতে সক্ষম। একটানা মাত্র ১২ মিনিট উড়তে পাড়বে এটি।

ধুলা ও পানি প্রতিরোধক হবে ডিজেআই’র ড্রোনটি। ব্যবহারকারী চাইলে এটি ভাঁজ করে রাখতে পারবেন। তুলনামূলকভাবে কম ক্ষয় হয় এমন ধাতু দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আগরাস এমজি-১।

প্রাথমিকভাবে এ ড্রোন শুধু চীন ও দক্ষিণ কোরিয়ায় কৃষক ও খামার পর্যায়ে ব্যবহারের জন্য দেওয়া হবে। ধারণা করা হচ্ছে এর দাম হবে ১৫ হাজার মার্কিন ডলার।

চীনের এ জায়ান্ট ড্রোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ডিজেআই ২০১৪ সালে ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের ড্রোন ব্যবসা করেছে। এ বছর প্রতিষ্ঠানটি এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ড্রোন বিক্রির লক্ষ্য ঠিক করেছে।

সেলিব্রিটি হলেন সফটওয়্যার পাইরেসি করে!

sofসফটওয়্যার পাইরেসির মামলায় আদালতে অভিযুক্ত এক চেক নাগরিক ইয়াকুব এখন সেলিব্রিটি। এর আগে পাইরেসির দায়ে চেক রিপাবলিকের একটি আদালত ইয়াকুবকে তিন বছরের জেল দেন। বিচারক বলেন, আর্থিক বিষয়ে মিমাংসা করতে হলে তা সিভিল কোর্টে যেতে হবে। সফটওয়্যার পাইরেসির মামলায় বিশ্বের জায়ান্ট প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার মতো অর্থ ছিল না ইয়াকুবের। তার পাইরেসির কারণে শুধু মাইক্রোসফটেরই দেড় লাখ ইউরো ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

মাইক্রোসফট, এইচবিও, সনি, টোয়েন্টিথ সেঞ্চুরি ফক্সের মতো প্রতিষ্ঠান নিয়ে গঠিত বিজনেস সফটওয়্যার অ্যালায়েন্স (বিএসএ) জোট প্রতিষ্ঠানগুলোর ইয়াকুবের কাছ থেকে ক্ষতিপূরণ পাওয়া যাবে না ভেবে তাকে দিয়ে সফটওয়্যার পাইরেসিবিরোধী একটি ভিডিও তৈরি করেছিল।

শর্ত ছিল দুই মাসের মধ্যে ওই ভিডিওটি দুই লাখ বার ভিউ হতে হবে, না হলে মামলার শাস্তি ভোগ করতে হবে ইয়াকুবেকে। অর্থের অভাবে অভিনব শাস্তি মেনে নেন ৩০ বছর বয়সী ইয়াকুব।

পরে ইউটিউবে ভিডিওটি আপলোডের ২৪ ঘন্টার কম সময়ের মধ্যে এর ভিউ দুই লাখ ছাড়িয়েছে যায়। বর্তমানে এর ভিউ চার লাখ ছাড়িয়েছে। ভিডিওটির নাম দেওয়া হয়েছে দ্য স্টোরি অব মাই পাইরেসি।

ওই ভিডিওটিতে পাইরেসি না করার আহ্বান জানিয়েছেন ইয়াকুব। ভিডিওতে তার পাইরেসি করা ও ধরা পরার বিভিন্ন বিষয় দেখানো হয়েছে।

অ্যানিমেশন স্টার্টআপ ফেসসিফট কিনেছে অ্যাপল

Faceshiftঅ্যানিমেশন মুভির জন্য থ্রিডি অ্যানিমেটেড চরিত্রের অঙ্গভঙ্গি এনে দেওয়া প্রতিষ্ঠান ফেসসিফট কিনেছে টেক জায়ান্ট অ্যাপল । স্টার ওয়ারের সর্বশেষ চলচ্চিত্রে মোশন ক্যাপচার টেকনোলজি ব্যবহার করে চমক দেখিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি ।

ফেসসিফট জুরিখভিত্তিক একটি স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান । এটি বিশেষ এক ধরণের সফটওয়্যারের মাধ্যমে থ্রিডি অ্যানিমেটেড চরিত্রগুলোতে মানুষের মতো এক্সপ্রেশন এনে দিতে কাজ করে । এরই মধ্যে ফেইসসিফটের মোশন ক্যাপচার টেকনোলজি বিভিন্ন চলচ্চিত্রে ও ভিডিও গেইমস নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবহার করা শুরু করেছে। প্রতিষ্ঠানটি কিনতে কত ব্যয় হয়েছে তা জানায়নি টেক জায়ান্ট অ্যাপল। ফেইসসিফটের পক্ষ থেকেও চুক্তির অংক গোপন রাখা হয়েছে।

এমন একটি প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের কি কাজে আসবে বা প্রতিষ্ঠানটি কি জন্য কেন হয়েছে তা পরিস্কার নয়।

অ্যাপলের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, সময়ের প্রয়োজনেই ফেইসসিফট কেনা হয়েছে। অ্যাপল কখনো নিজেদের কাজের উদ্দেশ্য ও পরিকল্পনা প্রকাশ করে না।

তবে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন ভারচ্যুয়াল রিয়েলিটি পণ্য নিয়ে কাজ করছে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। এ কারণেরই ফেইসসিফটের মতো একটি প্রতিষ্ঠান কিনেছে তারা।

হুয়াই ওয়াই পাওয়া যাচ্ছে আকর্ষণীয় মূল্যে

huwaiহুয়াই, বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্র্যান্ড বাংলাদেশে তাদের জনপ্রিয় দুটি স্মার্টফোন হুয়াই জি প্লে মিনি ও হুয়াই ওয়াই৬২৫ এর জন্য নতুন আকর্ষণীয় মূল্য ঘোষণা করেছে। থ্রিজি উপযোগী শক্তিশালী স্মার্টফোন দুটিতে রয়েছে ৫ ইঞ্চির আইপিএস ডিসপ্লে ও ডুয়েল সিম স্লট। এন্ড্রয়েড কিটক্যাট ৪.৪.২ অপারেটিং সিস্টেম চালিত হুয়াই জি প্লে মিনিতে এ আছে ১.২ গিগাহার্টজের অক্টাকোর প্রসেসর। এতে আরো রয়েছে ২জিবি র‌্যাম,৮ জিবি ইন্টারন্যাল মেমোরি যা সর্বোচ্চ ৩২ জিবি পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যাবে। ফোনটিতে প্রাইমারি ক্যামেরা হিসেবে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশ ও অটোফোকাস সমৃদ্ধ ১৩ এমপি ক্যামেরা ও সেলফি তোলার জন্য আছে ৫ এমপি ক্যামেরা। ফোনটি দীর্ঘক্ষণ ব্যবহারের জন্য রয়েছে ২৫৫০এমএএইচ ব্যাটারি। হুয়াই জি প্লে মিনি এর নতুন মূল্য ১৪,৯৯০ টাকা (পূর্বমূল্য ১৫,৯৯০ টাকা) ।
অন্যদিকে হুয়াই ওয়াই৬২৫ এ অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে এন্ড্রয়েড কিটক্যাট ৪.৪.২। এতে আরো রয়েছে ১.২ গিগাহার্টজের অক্টাকোর প্রসেসর, ১ জিবি র‌্যাম, ৪জিবি মেমোরি যা সর্বোচ্চ ৩২ জিবি পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যাবে। ফোনটিতে এলইডি ফ্ল্যাশ ও অটো ফোকাস সমৃদ্ধ ৮ এমপি রিয়ার ক্যামেরা ও ২এমপি ফ্রন্ট ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়াও ফোনটিতে ২০০০ এমএএইচ এর একটি শক্তিশালী ব্যাটারি রয়েছে। নতুন অফারে ফোনটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৮,৯৯০ টাকা (পূর্বমূল্য ৯,৯৯০ টাকা)।

ফোনগুলো বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক এর হুয়াই শোরুম সহ দেশ জুড়ে বিস্তৃত হুয়াই ব্রান্ড ইমেজ শপ গুলোতে পাওয়া যাবে। এছাড়াও বাংলাদেশের ৬৪ জেলার শীর্ষস্থানীয় মোবাইল মার্কেট গুলোতেও এই হ্যান্ডসেট দুটি পাওয়া যাবে।

স্যামসাং আনছে সাশ্রয়ী দামের নতুন ফোন

samsungনতুন আরেকটি ফোন যোগ হচ্ছে স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি সিরিজে। ফোনটির মডেল গ্যালাক্সি জে৩। সম্প্রতি ফোনটি টেলিকমিউনিকেশন্স ইকুইপমেন্ট সার্টিফিকেশন সেন্টার ইন চায়নার সনদ সংগ্রহ করেছে। এই ফোনটি হবে এন্ট্রি লেভেলের।
স্যামসাংয়ের নতুন এই ফোনটিতে আছে ৫ ইঞ্চির সুপার অ্যামোলিড ডিসপ্লে। ডিসপ্লেতে ৭২০ পিক্সেল থাকছে। ফোনটি আরও আছে ১.২ গিগাহার্টজের কোয়াডকোর সিপিইউ, ১.৫ জিবি র‌্যাম এবং ৮ জিবি বিল্টইন মেমোরি।

মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে মেমোরি বাড়ানোর সুযোগ আছে।

ফোনটির ওজন ১৩৮ গ্রাম। আয়তন ১৪২.৩ী৭১ী৭.৯ মিলিমিটার। ফোনটির ব্যাটারিতে থাকছে ২৬০০ মিলিঅ্যাম্পায়ার আওয়ার।

স্যামসাং জে ৩ ফোনটির রিয়ার ক্যামেরা হবে ৮ মেগাপিক্সেল। সেলফি ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেলের।
নতুন ফোনটি অ্যানড্রয়েড ৫.১.১ ললিপপ অপারেটিং সিস্টেম চালিত হবে। ফোনটির দরদাম কেমন হবে সে বিষয়ে এখনো ধারণা পাওয়া যায়নি। ফোনটি যেহেতু এন্ট্রি লেভেলের তাই এটির দামও হাতের নাগালে থাকবে।

আসছে মোবাইল হ্যান্ডসেটের নিবন্ধন

meetসিম নিবন্ধনের পর মোবাইল হ্যান্ডসেটও নিবন্ধনের আওতায় আসছে। ২০১৬ সালের এপ্রিলে সিম নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর হ্যান্ডসেটের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হবে। শনিবার বাংলাদেশ টেলিকম রিপোর্টাস নেটওয়ার্ক (টিআরএবি) আয়োজিত এক সেমিনারে এই মোবাইল হ্যান্ডসেট নিবন্ধনের বিষয়টি জানান টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে আয়োজিত এ সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন তারানা। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের(বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ।

তারানা হালিম বলেন, এপ্রিলে সিম নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর মোবাইল হ্যান্ডসেটের ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল স্টেশন ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি (আইএমইআই) নাম্বারের নিবন্ধন করা হবে।

তিনি বলেন, মোবাইল ডিভাইস বিষয়ে বিটিআরসিকে পৃথক সেল গঠন করতে হবে। যাতে যেকোনো অভিযোগ বা সমস্যায় দ্রুত রেসপন্স করা যায়।

শাহজাহান মাহমুদ বলেন, সিম নিবন্ধনে অর্ধেক নিরাপত্তা মিলবে আর আইএমইআই নিবন্ধনের পর পুরো নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে।

তিনি বলেন, মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত এবং অপরাধীদের চিহ্নিত করতে আইএমইআই নাম্বার মোবাইল অপারেটরসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে সংরক্ষণ করা হবে। মোবাইল অপারেটরগুলো যেন অনিবন্ধিত আইএমইআই সনাক্ত করে তা বন্ধ করে দিতে পারে সে উদ্যোগও নেয়া হবে।

ফেসবুক, ভাইবার কি আসলেই বন্ধ?

Facebook-02“মোবাইল ফোনে নেদারল্যান্ডস আর পিসিতে যুক্তরাষ্ট্রে আছি” সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ফেসবুকে বৃহস্পতিবার একজনের দেয়া স্ট্যাটাস এটি।

এর নিচে কমেন্টে কেউ লিখেছেন “আমি যুক্তরাষ্ট্রে”, আবার কেউ লিখেছেন “আমি জার্মানিতে” অথবা “আমি জাপানে”।
এখন প্রশ্ন হলো বাংলাদেশের সরকার ফেসবুক, ভাইবার এবং হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়ার পর ফেসবুকে সবাই কি বিদেশ থেকে “চেক ইন” করছেন?

ওপরের স্ট্যাটাস কিংবা কমেন্টদাতারা সবাই-ই বাংলাদেশ থেকে নিজেদের ফোন বা কম্পিউটার থেকেই ফেসবুক ব্যবহার করে এসব বক্তব্য দিচ্ছেন।

অর্থাৎ দেশের ভেতরে ফেসবুক বন্ধের ঘোষণা থাকলেও ঠিকই তা ব্যবহার করা যাচ্ছ। কিভাবে?

বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক (নামটি এখানে উল্লেখ করা হচ্ছে না) বিবিসিকে বলছিলেন, “তথ্য প্রযুক্তির এই সময়ে এসে লোকজনকে এতটা বোকা ভাবার কোনো কারণ নেই। তথ্যপ্রযুক্তি এখন কোন জায়গায় চলে গেছে সে সম্পর্কে সরকারের লোকজনের বোধহয় কোনও ধারণা-ই নেই। কারণ সরকার একদিকে এসব মাধ্যম বন্ধ রাখার ঘোষণা দিচ্ছে। কিন্তু অন্যদিকে বিভিন্ন প্রযুক্তির সাহায্যে এগুলোর ব্যবহার যথারীতি চলছেই।”

তিনি জানান, এখন এমন সব সফটওয়্যার আছে যা যে কেউ চাইলেই ইন্টারনেটে ডাউনলোড করে তার সাহায্যে ফেসুবক ব্যবহার করতে পারে। আর সেটাই করা হচ্ছে এখন। এর ফলে একজন ফেসবুকে ঢুকলেও বাংলাদেশের আইপি অ্যাড্রেস সেখানে দেখাবে না। দেখাবে অন্য কোনো দেশের অ্যাড্রেস। এ ধরনের প্রযুক্তিকে বলে ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক বা ভিপিএন সফটওয়্যার।

এছাড়া মোবাইল ফোন থেকেও বিভিন্ন সফটওয়্যারের মাধ্যমে প্রক্সি সা্ইট ব্যবহার করে ফেসবুক ব্রাউজিং করছেন অনেকে। এমনই একজন বলছিলেন তিনি নিজের নকিয়া মোবাইল থেকে সকালেই ফেসবুক চেক করেছেন।

বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ কর্তৃপক্ষ বিটিআরসি দেশের সব মোবাইল ও ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ফেসবুক, ফেসবুক মেসেঞ্জার, ভাইবার এবং হোয়াটসঅ্যাপ সেবা অবিলম্বে বন্ধ করে দেয়ার নির্দেশ দেয়।

এ নিষেধাজ্ঞার মাঝেই ফেসবুকে ঢুকতে পেরে এ নিয়ে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন অনেকেই।

আরাফাত সিদ্দিকী নামে একজন্য ব্যবহারকারী লিখেছেন, “ফেসবুক নাই তাতে কি ইউটিউব-এ ঢুকে স্ট্যাটাস দিছি…”

সৈয়দ মিসবাউল আনোয়ার নামে একজন ফেসবুকে ঢুকে ঠাট্টা করে লিখছেন “বাংলাদেশে ফেসবুক বন্ধ।”

“Install a VPN app”-লিখেছেন মির রাব্বি। এরকম অসংখ্য স্ট্যাটাস দিয়েই সয়লাব আজকের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।

তথ্য প্রযুক্তি এতটাই দূরে চলে গেছে যে ভাইবার বা হোয়াটসঅ্যাপেও যোগাযোগের উপায় বের করে নিচ্ছেন অনেকেই।

শিক্ষাথীদের জন্য দেখে নিন ৪টি ফ্রি অ্যাপ

Appsশিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় প্রযুক্তি নানা সুবিধা বয়ে এনেছে। বিশেষ করে বেশ কয়েকটি অ্যাপের কথা না বললেই নয়। এখানে দেখে নিন ৪ টি ফ্রি অ্যাপের কথা।

১. Quizlet : আইফোন এবং অ্যান্ড্রয়েডে বিনামূল্যে মিলবে অ্যাপটি। আন্তর্জাতিক স্টাডি সাইটগুলোতে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছে অ্যাপটি। এতে পড়াশোনার নানা টিপস দারুণ উপকারী। হাইস্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্যে নানা কোর্সের এক উপযোগী টুল হিসেবে গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। এমনকি শিক্ষকরাও তাদের বিভিন্ন কোর্স সম্পর্কে ধারণা পেতে ‘কুইজলেট’ ব্যবহার করেন।

২. Evernote : এই অ্যাপটিও আইওএস এবং অ্যান্ড্রয়েডে ফ্রি পাওয়া যাবে। যেকোনো নোট নিতে দারুণ একটি অ্যাপ। এখান থেকে যাবতীয় নোট ল্যাপটপে বা কম্পিউটারে সিঙ্ক্রোনাইজ করতে পারবেন।

৩. StudyBlue : হাইস্কুল ও কলেজ শিক্ষার্থীদের জন্যে দারুণ এক অ্যাপ। আইফোন ও অ্যান্ড্রয়েডে ফ্রি মিলবে। সাধারণত কোর্সওয়ার্ক গুছিয়ে নিতে সহায়তা করতে আপনাকে। নিজের ইচ্ছামতো কুইজ ও ফ্ল্যাশকার্ড বানাতে পারবেন।

৪. Algeo Graphing Calculator : আইফোন ও অ্যান্ড্রয়েডে ফ্রি পাবেন। এটা একটা দারুণ গ্রাফিং ক্যালকুলেটর। এ বিষয়ে যতগুলো ক্যালকুলেটর রয়েছে এটি তাদের সেরা।

এখন গুগল ম্যাপস ব্যবহার ইন্টারনেট ছাড়াই

manchitroসার্চ ইঞ্জিন গুগল এবার নিজেদের মানচিত্র সেবা ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় ব্যবহারের সুবিধা চালু করতে যাচ্ছে। নতুনহালনাগাদে বিষয়টি যুক্ত করা হবে। এতে করে গুগল ম্যাপস ব্যবহার করতে ইন্টারনেটে যুক্ত হতে হবে না। শুধু অবস্থানই নয়, নির্দিষ্টভাবে বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোঁজা, দোকান কিংবা প্রতিষ্ঠানের খোলা ও বন্ধের সময়, টেলিফোন নম্বরও অফলাইনে পাওয়া যাবে।

গুগল জানিয়েছে, কোনো পর্যটক অন্য দেশে গেলে ইন্টারনেট পাওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়েন বা বেশি মূল্য দিয়ে ডেটা কেনার প্রয়োজন পড়ে। অফলাইনে গুগল মানচিত্র সেবাটি চালু হলে তাঁরাই সবচেয়ে বেশি সুবিধা পাবেন। নির্দিষ্ট কোনো শহরে যাওয়ার আগে সে শহরের মানচিত্রের একটি সংস্করণ নিজের মোবাইল ফোনে নামিয়ে নিয়েই কাজটি করা যাবে। এক তথ্যে গুগল জানিয়েছে, মোবাইল ফোনে নামিয়ে নেওয়া মানচিত্রের আকারও খুব বেশি বড় হবে না। যেমন পুরো লন্ডনের মানচিত্রের আকার হবে ৩৮০ মেগাবাইট।

গুগল মানচিত্রের পরবর্তী সংস্করণ থেকে অফলাইনের এ সংস্করণটি পাবেন ব্যবহারকারীরা। ইনস্টল করার ১৫ দিন পরপর কোনো ওয়াই-ফাই সংযোগ বা মোবাইল ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে সহজেই হালনাগাদ হয়ে যাবে অফলাইনের অ্যাপটি।

গুগল মানচিত্রের পণ্য ব্যবস্থাপক আমান্দা বিশপ বলেন, ‘তিন বছর ধরেই আমরা এটি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।’ আগামী বছরের শুরুতে আইওএস ব্যবহারকারীরাও এ সেবাটি পাবেন বলে জানা গেছে।
বিবিসি

বাংলাদেশের ৮৭টি রেডিও নিয়ে ফ্রি মোবাইল অ্যাপ!

Redioদেশে কিংবা বিদেশে — পৃথিবীর যে প্রান্তেই থাকুন না কেন, বাংলাদেশকে রাখুন হাতের মুঠোয়! সারাক্ষণ মেতে থাকুন গান, আড্ডা আর বিনোদনে। প্রতি মুহূর্তের খবর শুনেও নিজেকে রাখুন আপডেট। আর এর সবই আপনি করতে পারবেন মাত্র একটি মোবাইল-অ্যাপের মাধ্যমে। ‘বাংলা রেডিও’ নামের একটি অ্যাপ আপনাকে দিচ্ছে বাংলাদেশের ৮৭টি এফএম এবং অনলাইন রেডিও লাইভ শোনার সুযোগ। দেশি-বিদেশি গান, সংবাদ, সংবাদ-বিশ্লেষণসহ বিনোদনমূলক নানান অনুষ্ঠান উপভোগ করতে আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে এখনই ডাউনলোড করে নিন ‘বাংলা রেডিও’। এটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পাবেন গুগল প্লে-স্টোরে।

লিঙ্কটি হলো : https://play.google.com/store/apps/details?id=digbazar.com.bangla.radio

এই অ্যাপটির প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ডিগবাজার লিমিটেড সম্প্রতি বাংলা রেডিও গুগল প্লে-স্টোরেও উন্মুক্ত করেছে। নিউইয়র্কভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির অন্যতম ম্যানেজিং পার্টনার ডেইজি হ্যামিলটন বলেন, আমি জানি বাংলাদেশের মানুষ সঙ্গীতপ্রেমী। সেই সঙ্গে তারা সবসময় তথ্যও জানতে চায়। তাই আমাদের প্রতিষ্ঠান এ অ্যাপটি তৈরি করেছে। তিনি বলেন, এবিসি রেডিওসহ বিভিন্ন রেডিওতে শোনা যায় লাইভ ট্রাফিক আপডেট ও লাইভ নিউজ আপডেট। এ ছাড়া

গান আর আড্ডা তো রয়েছেই!
প্রতিষ্ঠানটির কনটেন্ট ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার ফারজানা মৌ বলেন, আপনি ক্রিকেট খেলার ভক্ত? জানতে চান স্কোর? শুনতে চান লাইভ ধারাভাষ্য? তাহলে রেডিও স্বাধীন হতে পারে আপনার প্রায় প্রতিদিনের সঙ্গী। এভাবে বিভিন্ন রেডিওতে শ্রোতাদের জন্য রয়েছে নানান আয়োজন। মাত্র কয়েক মেগাবাইটের এই অ্যাপটি স্মার্টফোনে ডাউনলোড করে নিলে সারাক্ষণ গান আর লাইভ আপডেট শুনতে পারবেন শ্রোতারা। অল্প ইন্টারনেট ডাটা ইউজ হয় অ্যাপটি চলতে। তিনি বলেন, আমি মনে করি গুগল প্লে-স্টোরে যতগুলো রেডিও অ্যাপ আছে তার মধ্যে এটিই সেরা। কারণ, এতে যুক্ত হয়েছে বাংলাদেশের সবগুলো রেডিও। আর এটি ইউজার-ফ্রেন্ডলি।

মুছে যাওয়া তথ্য ফেরত আনার সহজ পদ্ধতি

Memory-Cardঅনেক সময় নিজের অসাবধানতার কারণে আপনার পিসি অথবা মোবাইল ফোনে ব্যবহৃত মেমোরিকার্ডের সমস্ত ডেটা বা তথ্য হঠাৎ ডিলেক্ট হয়ে যায়। এই সময় আপনার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হয়ত মুছে যায়। তবে আর চিন্তা নেই। এখন থেকে আপনি আপনার মেমোরিকার্ড থেকে মুছে যাওয়া সমস্ত তথ্য পুনরায় ফিরিয়ে আনতে পারবেন। তবে তা করার জন্য আপনাকে যা করতে নিচের পদ্ধতি গ্রহণ করতে হবে-

1. http://www.piriform.com/recuva এই লিঙ্কটি থেকে রিকুভা নামের সফটওয়্যার ডাউনলোড করে আপনার পিসিতে ইনস্টল করুন।
2. সফটওয়্যারটি চালু করে প্রদর্শিত তালিকা থেকে Pictures অপশন নির্বাচন করে Next বাটনে ক্লিক করুন।
3. এবার মুছে যাওয়া ছবি যে ফোল্ডার বা স্থানে ছিল তা নির্বাচন করে আবারও Next বাটনে ক্লিক করুন। এতে করে সফটওয়্যারটি মেমোরি কার্ড স্ক্যান করে মুছে যাওয়া JPEG ফরমেটের ছবি প্রদর্শন করবে। Switch to advanced mode বাটনে ক্লিক করে অন্যান্য ফরমেটের ছবিও খুঁজে পাওয়া সম্ভব।
4. এরপর আপনার হারানো ছবিগুলি নির্বাচন করার পরে Recover বাটনে ক্লিক করুন এবং আপনি এই ছবিগুলি কোথায় সেভ করে রাখতে চান সেটি ব্রাউজ অপশনে গিয়ে ঠিক করে দিন। এর পরপরই আপনার হারানো ছবিগুলি ওই ফাইলে ফেরত চলে আসবে।

ছবির ঝলক

0117517
Visit Today : 35
Visit Yesterday : 70
Total Visit : 117517
Hits Today : 65
Total Hits : 736301
Who's Online : 1

facebook